ওমেগা প্রাইম গঠনতন্ত্র

 

দিনে দিনে ওমেগা প্রাইমের কাজের বিস্তৃতি বৃদ্ধি পাচ্ছে, সে সাথে বাড়ছে সদস্য সংখ্যা। সেক্ষেত্রে ওমেগা প্রাইমের সকল কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে একটি নীতিমালা অত্যন্ত আবশ্যক। এই নীতিমালাই হল ওমেগার সংবিধান। ওমেগার সকল সদস্য এই নীতিমালা অনুসরণ করেই সকল কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

ওমেগা টিম বিভাজন

ওমেগার কাজের পরিধি বৃদ্ধির সাথে সাথে ওমেগা টিমকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি টিম তার নিজস্ব কাজ সম্পূর্ণ করতে সর্বদা সচেষ্ট থাকবে।

পুরো ওমেগা টিমকে যেভাবে বিভাজন করা হয়েছে-

১) ওমেগা কেন্দ্রীয় টিম

২) ওমেগা জেলা স্থানীয় টিম

৩) ঢাকা জেলার জন্য ক্যাম্পাস প্রতিনিধি টিম 

ওমেগা কেন্দ্রীয় টিম

মোট ১২ জন সদস্য নিয়ে ওমেগার কেন্দ্রীয় টিম গঠিত হবে। ওমেগা কেন্দ্রীয় টিম থেকে ওমেগার সকল কার্যক্রম ও নীতিনির্ধারণ ঠিক করা হবে। তবে এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় টিম, জেলা টিম ও উপদেষ্টাদের সাথে আলোচনার মাধ্যমেই সকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে। কেন্দ্র থেকে জেলাতে সকল দিকনির্দেশনা দেয়া এবং অন্যান্য কর্মকান্ড জেলায় বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জেলা টিমের সাথে কেন্দ্রীয় টিম সেতু বন্ধন করে কাজ করবে।

কেন্দ্রীয় টিমে কিছু পদবিভাজন থাকবে। সেটা হল-

১) প্রেসিডেন্ট ২) সেক্রেটারি ৩) ভাইস প্রেসিডেন্ট  ৪) ডেপুটি সেক্রেটারি ৫) জয়েন্ট সেক্রেটারি ৬) প্ল্যানিং এন্ড আইডিয়া ৭) পাবলিক রিলেশন এন্ড আউটরিচ ৮) প্রোজেক্ট ইমপ্লিমেন্ট ৯) ম্যাগাজিন ম্যানেজিং ১০) ক্রিয়েটিভ মার্কেটিং ১১) মেম্বার ১২) মেম্বার

পদ অনুসারে সকলের কাজ পরবর্তীতে ভাগ করে দেয়া হবে।

জেলা স্থানীয় টিম 

সারাদেশ হতে ৬৪ জেলায় ৬৪ টা জেলা টিম গঠিত হবে। প্রতি জেলায় মোট ১২ জন নিয়ে একটি জেলা টিম গঠিত হবে। ওমেগা থেকে গৃহীত জেলা ভিত্তিক সকল কার্যক্রম বাস্তবায়ন করাই হবে জেলা টিমের কাজ। তবে জেলা টিম চাইলে নিজেরাই যেকোনো বিজ্ঞানভিত্তিক কর্মকান্ডের আয়োজন করতে পারে। সেক্ষত্রে কেবল কেন্দ্রকে অবগত করলেই হবে। মূলত জেলার ক্ষেত্রে জেলা টিমই সর্বেসর্বা হিসেবে কাজ করবে। জেলার কোন কাজে কেন্দ্র হস্তক্ষেপ করবে না। তবে অবশ্যই কাজগুলো বিজ্ঞান জনপ্রিয়, বিজ্ঞান চর্চা বৃদ্ধি ও ওমেগার সার্বিক প্রসারের জন্যই হতে হবে।

জেলা টিম পদ বিভাজন-

১) জেলা সমন্বয়ক ২) জেলা সহ-সমন্বয়ক ৩) সদস্য ৪) সদস্য ৫) সদস্য ৬) সদস্য ৭) সদস্য ৮) সদস্য

৯) সদস্য ১০) সদস্য ১১) সদস্য ১২) সদস্য

কেন্দ্র থেকে জেলা সমন্বয়ককে নির্বাচন করা হবে। নির্বাচিত জেলা সমন্বয়কের রেফারেন্সের ভিত্তিতে জেলা সহ-সমন্বয়ক নির্বাচন করা হবে। এ দুজনের সাথে ওমেগা থেকে তার জেলা বিষয়ক সকল কাজের জন্য যোগাযোগ করবে। পরবর্তীতে নিজের সুবিধামত জেলা সমন্বয়ক তাদের ১০ জন সদস্য নির্বাচন করবে।

*উপরোক্ত পদবিভাজনগুলো কেবল কাজের সুবিধার জন্য করা হয়েছে। আমরা সবাই বিজ্ঞান প্রচারের স্বপ্ন দেখি। একসাথে মিলে একটা সুন্দর সমাজ গড়াই আমাদের লক্ষ্য। সেক্ষেত্রে ওমেগার প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে একজন সদস্য সবাই সমান মর্যাদার অধিকারী হবে। সকলের মতামত সমানভাবে গুরুত্ব পাবে। এখানে আমরা সবাই কেবল ওমেগার সদস্য হিসেবেই বিবেচিত হব। সুতরাং কোন দ্বন্দ্ব না করে সবাই একসাথে কাধে কাধ মিলিয়ে বিজ্ঞানের জন্য কাজ করে যাওয়াই হবে আমাদের অঙ্গীকার। আমরা একে অন্যকে সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা প্রদর্শনের মাধ্যমে আগামী দিনে কাজ করে যাব। সর্বোপরি, একটি পরিবারের মত ওমেগার সকল সদস্য সবাই মিলে একটি পরিবারের মতই একে অন্যের সাথে আচরণ করব। অন্তত বিজ্ঞান আমাদের সেটাই শিক্ষা দেয়। আপনি আমি সবাই ঐ নক্ষত্রের আবর্জনা থেকেই তৈরি হয়েছি। সুতরাং পার্থক্য করার কোন রাস্তা নেই।

 



জেলা সমন্বয়কদের নির্বাচন পদ্ধতি ও কাজ

নির্ধারিত ফর্ম পূরণের মাধ্যমে যেকেউ ওমেগার জেলা সমন্বয়কের জন্য আবেদন করতে পারবে। আবদনের ২-৫ দিনের মধ্যে ওমেগা থেকে আবেদনকারীর সাথে যোগাযোগ করে তাকে অনুমোদন দেয়ার ব্যাপারে কথা বলবে। কোন আবেদনকারী অনুমোদন পেলে তাকে ওমেগা থেকে ১ মাস ট্রায়ালে রাখা হবে। এই ১ মাস ওমেগা থেকে প্রেরিত কাজ সম্পাদনের উপর ভিত্তি করে সদস্যের একটিভিটি ও মানসিকতা পর্যবেক্ষণ করা হবে। এক মাস পরে ওমেগা থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে যে ঐ সদস্যকে কাজে বহাল রেখে অফিসিয়াল ভাবে অনুমোদন দেয়া হবে কিনা। যদি কেউ ১ মাসে তার যোগ্যতা প্রদর্শনে বিফল হয় তাহলে তাকে বিবেচনায় রেখে পুনরায় ট্রায়ালে রাখা হবে অথবা ওমেগা থেকে অব্যাহতি দেয়া হবে।

অফিসিয়াল ভাবে অনুমোদন প্রাপ্ত সদস্য তার জেলায় তার আশপাশ/ জেলা শহর থেকেই একজন সহ-সমন্বয়ক নির্বাচন করবে। পরবর্তিতে জেলা সমন্বয়ক তার সহকারীর বায়োডাটা কেন্দ্রে প্রেরণ করবে। পরবর্তিতে বিবেচনা সাপেক্ষে কেন্দ্র হতে সহ-সমন্বয়ক অনুমোদন পাবেন।

এরপরই জেলা সমন্বয়ক ও তার সহকারী মিলে জেলা শহরসহ পুরো জেলা থেকে মোট ১০ জন সদস্য নিবেন। সেক্ষেত্রে জেলা সমন্বয়কগণ চেষ্টা করবেন জেলা থেকে যেন সকল উপজেলা থেকেই সদস্য নেয়া হয়। এক্ষেত্রে জেলা সমন্বয়ক তার কাজের সুবিধার্থে গুগল ফর্মের মাধ্যমে জেলা হতে সদস্য নির্বাচন করতে পারেন।

এভাবেই একটি জেলায় ১২ জনের একটি টিম গঠিত হবে।

জেলা সমন্বয়কগণ যেসব কাজ করবেন-

১) ওমেগা থেকে নির্ধারিত মাসে নির্দিষ্ট স্কুল/কলেজে বিজ্ঞান অলিম্পিয়াডের আয়োজন করবেন।

২) ওমেগা থেকে নির্ধারিত মাসে নির্দিষ্ট স্কুল/কলেজে বিজ্ঞান ডিবেট আয়োজন করার ব্যবস্থা করবেন।

৩) প্রতি মাসে একটি বিজ্ঞান লেকচারের আয়োজন করবেন।

৪) প্রতি মাসে অন্তত একবার জেল সমন্বয়ক তার সদস্যদের নিয়ে মিটিং এর ব্যবস্থা করবেন। সেখানে সবাই আইডিয়া শেয়ারিং করবেন এবং আরও কিভাবে ভালোভাবে কাজ করা যায়, আরও কি কি একটিভিটি চালানো যায় সেসব নিয়ে আলোচনা করবেন।

৫) ওমেগা থেকে প্রকাশিত ‘আলোকবর্তিকা । বিজ্ঞান পত্রিকা’ প্রতিমাসে বিজ্ঞানে আগ্রহীদের কাছে পৌছে দিতে হবে। এই পত্রিকা ওমেগা থেকে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য প্রকাশিত হয়।

*উপরোক্ত কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কিভাবে কি করতে হবে সকল দিকনির্দেশনা ওমেগা থেকে দেয়া হবে এবং এসকল কাজের সকল ব্যায়ভার ওমেগার কেন্দ্র থেকে বহণ করা হবে।

এসকল কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে ওমেগার সকল সদস্য নেতৃত্বের গুণাগুণ অর্জনের পাশাপাশি বাস্তব জীবনের কাজের সাথে পরিচিত হবেন এবং অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবেন। সবমিলিয়ে আমাদের সুষ্ঠু কাজের মাধ্যমে আমরা একটা বিজ্ঞানমনস্ক, কুসংস্কারমুক্ত, আধুনিক সমাজ গঠনের স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যাব।

 



ক্যাম্পাস প্রতিনিধি নির্বাচন পদ্ধতি ও কাজ

শুধুমাত্র ঢাকা জেলার জন্য বিভিন্ন স্কুল কলেজ থেকে ক্যাম্পাস প্রতিনিধি নেয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে একজন ক্যাম্পাস প্রতিনিধি হিসেবে আবেদন করার ৩-৫ দিনের মধ্যে ওমেগা থেকে আবেদনকারীর সাথে যোগাযোগ করা হবে। তাকে ক্যাম্পাস প্রতিনিধি নির্বাচন করার পরে প্রথম এক মাস ট্রায়ালে রাখা হবে। ১ মাস পরে তাকে অফিসিয়াল ভাবে অ্যাপ্রুভ করা হবে এবং অফিসিয়াল আইডি কার্ড ও টি শার্ট দেয়া হবে। এই এক মাস সে তার ক্যাম্পাসে ওমেগার প্রচারে ও ওমেগা থেকে নির্ধারিত বিজ্ঞান কর্মশালা আয়োজন করতে নিজ ক্যাম্পাসে সাহায্য করবে।

ক্যাম্পাস প্রতিনিধি যেসব কাজ করবেনঃ-

১) নিজ ক্যাম্পাসে ওমেগার প্রচারে সাহায্য করবেন।

২) ওমেগা থেকে প্রচারিত ‘আলোকবর্তিকা’ বিজ্ঞান ম্যাগাজিন বিতরণ করবেন  (বিনামূল্যে)  এবং প্রয়োজন অনুসারে ক্যাম্পাসে লিফলেট ও স্টিকার দেয়াও হতে পারে।

৩) ক্যাম্পাসে ওমেগা থেকে কোন কর্মশালা বা লেকচারের আয়োজন করা হলে তার তদারকি করবেন।

৪) ক্যাম্পাসে কোন আয়োজন করার ক্ষেত্রে কলেজ/স্কুলের প্রধানের (প্রিন্সিপাল/অধ্যক্ষ) অনুমতি গ্রহণে সাহায্য করবেন।

৫) ক্যাম্পাসে ওমেগা থেকে কোন আয়োজন করা হলে সেটার প্রচারে কাজ করবেন। সর্বোপরি নিজ ক্যাম্পাসে ওমেগা প্রাইমের বিজ্ঞানভিত্তিক সকল কর্মকান্ডের দেখভাল করাই হবে ক্যাম্পাস প্রতিনিধির কাজ।

এসকল কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে ওমেগার সকল সদস্য নেতৃত্বের গুণাগুণ অর্জনের পাশাপাশি বাস্তব জীবনের কাজের সাথে পরিচিত হবেন এবং অনেক অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারবেন। সবমিলিয়ে আমাদের সুষ্ঠু কাজের মাধ্যমে আমরা একটা বিজ্ঞানমনস্ক, কুসংস্কারমুক্ত, আধুনিক সমাজ গঠনের স্বপ্ন পূরণের দিকে এগিয়ে যাব।

 

উপরোক্ত যেকোন আইন পরিবর্তন, পরিবর্ধন এবং বাতিল হওয়ার যোগ্যতা রাখে।

#বিজ্ঞানের_জয়_হোক